Deprecated: Function get_magic_quotes_gpc() is deprecated in /customers/2/1/8/swadhindesh.com/httpd.www/bangla/wp-includes/load.php on line 651 Deprecated: Function get_magic_quotes_gpc() is deprecated in /customers/2/1/8/swadhindesh.com/httpd.www/bangla/wp-includes/formatting.php on line 4382 Deprecated: Function get_magic_quotes_gpc() is deprecated in /customers/2/1/8/swadhindesh.com/httpd.www/bangla/wp-includes/formatting.php on line 4382 Deprecated: Function get_magic_quotes_gpc() is deprecated in /customers/2/1/8/swadhindesh.com/httpd.www/bangla/wp-includes/formatting.php on line 4382 Deprecated: Methods with the same name as their class will not be constructors in a future version of PHP; sh_sb_widget has a deprecated constructor in /customers/2/1/8/swadhindesh.com/httpd.www/bangla/wp-content/themes/effectivenews/lib/social/widget.php on line 9 শিশু-কিশোর – Swadhindesh.com-স্বাধীনদেশ https://bangla.swadhindesh.com Leading Bangladeshi Online Newspaper Thu, 22 Aug 2019 16:45:35 +0000 en-US hourly 1 https://wordpress.org/?v=4.9.18 ঝিনাইদহে সোয়া ২ লাখ শিশুকে ভিটামিন-এ খাওয়ানো হবে  https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%b8%e0%a7%8b%e0%a7%9f%e0%a6%be-%e0%a7%a8-%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%96-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%95/ Wed, 29 Jun 2016 09:34:44 +0000 http://bangla.swadhindesh.com/?p=54556 Vitamin

ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি (স্বাধীনদেশ ডটকম) : মঙ্গলবার দুপুর জাতীয় ভিটামিন-এ ক্যাপসুল ক্যাম্পেইন-২০১৬ উপলক্ষে সাংবাদিকদের জন্য এক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালায় আগামী ১৬ জুলাই জেলার সোয়া দুই লাখ শিশুকে ভিটামিন-এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে,এ তথ্য জানানো হয়। বিকাল ৩ টায় সিভিল সার্জন অফিস মিলনায়তনে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব আলম তালুকদার। কর্মশালায় সিভিল সার্জন ডা. আব্দুস সালাম সাংবাদিকদের জানান,
ঝিনাইদহ জেলায় ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ২৪ হাজার ১৮২ জন শিশুকে একটি করে নীল রংয়ের ও ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়স পর্যন্ত ২ লাখ ১ হাজার ১৭০ জন শিশুকে একটি করে লাল রংয়ের ‘‘ভিটামিন-এ’’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এ লক্ষে জেলায় মোট ১,৮৭২ টি কেন্দ্র খোলা হবে এবং এ সকল কেন্দ্রে ৫,৬১৬ জন স্বেচ্ছাসেবক দায়িত্ব পালন করবে। তিনি জানান, ভিটামিন-এ ক্যাপসুল সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং শিশুর স্বাস্থের জন্য খুবই উপকারী। এতে ক্ষতিকারক কোনো উপাদান নেই বা অহেতুক ভীতিরও কোনো কারণ নেই। তিনি শিশুর সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য ৬ থেকে ৫৯ মাস বয়স পর্যন্ত সকল শিশুকে একটি করে ভিটামিন-এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান।

এ ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহবান জানান। কর্মশালায় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ৩৫ জন সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

]]>
নবজাতক শিশুর জন্মের ৭ম দিন চুল কাটা ও আকিকার বিধানসহ গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরি কিছু মাসআলা https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%a8%e0%a6%ac%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%95-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a7%ad%e0%a6%ae-%e0%a6%a6%e0%a6%bf/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%a8%e0%a6%ac%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%95-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a7%ad%e0%a6%ae-%e0%a6%a6%e0%a6%bf/#respond Sun, 07 Feb 2016 11:02:02 +0000 http://bangla.swadhindesh.com/?p=45587 new baby nottingham

ঢাকা, ০৭ ফেব্রুয়ারি ( স্বাধীনদেশ ডটকম ) : প্রশ্ন: নবজাতক বাচ্চার চুল ৭ম দিন কাটা কী? ৭ম দিনের আগে বা পরে কাটা যাবে কি না? চুলের ওজন পরিমাণ রূপা-সোনা সদকা করার বিধান কী? আর এর মধ্যে কোনো হিকমত আছে কি? যদি এক বছর পরে আকীকা করা হয় তাহলে ঐ সময়ও কি চুল কেটে তার সমান রূপা-সোনা সদকা করতে হবে? এই চুল কাটা এবং আকীকা উভয়টি একসাথে করতে হবে নাকি আগে পিছে করলেও হবে। অর্থাৎ ৭ম দিনে চুল কাটা হল আর ১ বছর পর আকীকা করা হল।

উত্তর: সন্তান জন্মের ৭ম দিনে অভিভাবকের দায়িত্ব হল, সন্তানের আকীকা করা, মাথার চুল মুণ্ডন করা এবং তার সুন্দর নাম রাখা। হাদীস শরীফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, সন্তান আকীকার সাথে দায়বদ্ধ থাকে। তার পক্ষ থেকে সপ্তম দিনে পশু জবাই করবে, নাম রাখবে ও মাথা মুণ্ডন করে দিবে।-জামে তিরমিযী, হাদীস ১৫২২

সপ্তম দিনে আকীকা করা, মাথা মুণ্ডন করা এবং নাম রাখা মুস্তাহাব। তবে এ তিনটির কোনোটি অপরটি সাথে শর্তযুক্ত নয়। তাই কারো আর্থিক সামর্থ্য না থাকার কারণে সে যদি ৭ম দিনে আকীকা করতে না পারে তাহলেও ঐ দিন সন্তানের মাথা মুণ্ডন করে দিবে এবং নামও রাখবে। আকীকা করতে বিলম্ব হলেও এসব কাজে বিলম্ব করবে না। আর হাদীস শরীফে যেহেতু সপ্তম দিনে মাথা মুণ্ডন করতে বলা হয়েছে তাই সপ্তম দিনের আগে মুণ্ডন না করাই উচিত। মাথা মুণ্ডন করার পর চুলের ওজন পরিমাণ রূপা বা স্বর্ণ সদকা করা মুস্তাহাব।

হাদীস শরীফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হাসান রা.-এর আকীকা দিয়ে ফাতেমা রা.-কে বললেন, তার মাথা মুণ্ডন করে দাও এবং চুলের ওজন পরিমাণ রূপা সদকা করে দাও। -জামে তিরমিযী, হাদীস ১৫১৯ অপর এক হাদীসে রূপা বা স্বর্ণ সদকা করার কথাও এসেছে। -আলমুজামুল আওসাত, হাদীস ৫৫৮; মাজমাউয যাওয়াইদ, হাদীস ৬২০৪; ইলাউস সুনান ১৭/১১৯

রূপা বা স্বর্ণ সদকা করার হেকমত সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রথম কথা হল, উক্ত সদকার হেকমত সম্পর্কে হাদীস শরীফে যেহেতু কিছু বলা হয়নি তাই এর রহস্য বা হেকমত অনুসন্ধানের পিছনে না পড়াই ভালো। বান্দার কাজ হল, বিধি-বিধানের হেকমতের পিছনে না পড়ে শরীয়তের হুকুম পালন করে যাওয়া।

অবশ্য শাহ ওয়ালিউল্লাহ দেহলভী রাহ.-এর একটি কারণ এই লিখেছেন যে, সন্তান যে চুলসহ ভূমিষ্ট হয়েছিল তা কেটে ফেলার মাধ্যমে সন্তান একটি অবস্থানে পদার্পণ করে। তাই এর শুকরিয়াস্বরূপ ঐ চুলের বিনিময়ে সদকা করার হুকুম দেওয়া হয়েছে (হুজ্জাতুল্লাহিল বালিগা ২/১৪৫)। আর কোনো কারণবশত বাচ্চার চুল যদি সপ্তম দিনে কাটা সম্ভব না হয় সেক্ষেত্রে সপ্তম দিনের চুলের ওযন অনুমানে রূপা বা স্বর্ণ সদকা করে দিবে।

গ্রন্থনা ও সম্পদানা : মাওলানা মিরাজ রহমান
সৌজন্যে : মাসিক আল-কাউসার

]]>
https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%a8%e0%a6%ac%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%95-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a7%ad%e0%a6%ae-%e0%a6%a6%e0%a6%bf/feed/ 0
জানাযার সময় কেঁদে উঠল সদ্যোজাত https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%ae%e0%a7%9f-%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%81%e0%a6%a6%e0%a7%87-%e0%a6%89%e0%a6%a0%e0%a6%b2-%e0%a6%b8%e0%a6%a6%e0%a7%8d/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%ae%e0%a7%9f-%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%81%e0%a6%a6%e0%a7%87-%e0%a6%89%e0%a6%a0%e0%a6%b2-%e0%a6%b8%e0%a6%a6%e0%a7%8d/#respond Tue, 19 May 2015 01:32:26 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=35169 একেবারে শেষ পর্যায়ে চলছিল সদ্যোজাত মৃত সন্তানকে কবর দেয়ার প্রস্তুতি। ধর্মীয় বিধি মেনেই চলছিল সেই কাজ। সবাই চমকে কেঁদে উঠল ”মৃত” সন্তান৷সন্তানের কান্নার শব্দ শুনেই ছুটে গেলেন মা। দেখে কাঁদছে তাঁর কোলের সন্তান, যাকে কিছুক্ষণ আগেই মৃত বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসক। রোববার সন্ধ্যায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জয়নগর বাইশহাটা গ্রামে শোকের পরিবেশ এক নিমিষে হয়ে উঠল উত্সবমুখর৷

মৃত বলে ফিরিয়ে দেয়া শিশুর চিকিৎসা চলছে এখন একটি নার্সিংহোমে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, শিশুটি এখন অনেকটাই সুস্থ। সূত্রের খবর, বাইশহাটা গ্রামের বাসিন্দা ফকরুদ্দিন মোল্লার স্ত্রী ফতেমা বিবির রোববার বিকেলে হঠাৎই প্রসব যন্ত্রণা ওঠে৷ তাকে স্থানীয় একটি নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি সেখানে পুত্রসন্তান প্রসব করেন৷ চিকিৎসকরা জানান, সদ্যোজাত মৃত৷ এরপরই মৃত সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি চলে আসেন তিনি৷

সন্তান কোলে কান্নায় ভেঙে পড়েন ফকরুদ্দিন-ফতেমা৷ এরপরই শুরু হয় কবর দেওয়ার প্রস্তুতি। মাটি খোঁড়া থেকে শুরু করে সমস্ত আয়োজন করে ফেলার পরই হঠাত্‍ কেঁদে ওঠে শিশুটি৷ প্রথমটায় বিশ্বাস করতে না পারলেও আনন্দে আত্মহারা হয়ে সেই নার্সিংহোমের পথে ছোটেন ফকরুদ্দিন-ফতেমা৷ কিন্তু নার্সিংহোম শিশুটিকে ভর্তি নিতে অস্বীকার করে৷ এরপর অন্য একটি নার্সিংহোম শিশুটিকে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তার চিকিৎসা শুরু হয়৷ নার্সিংহোম সূত্রে খবর, শিশু এবং তার মা দু’জনই সুস্থ রয়েছেন৷

অভিযুক্ত নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে জয়নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ফকরুদ্দিন মোল্লা৷অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে পুলিশ।

]]>
https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%ae%e0%a7%9f-%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%81%e0%a6%a6%e0%a7%87-%e0%a6%89%e0%a6%a0%e0%a6%b2-%e0%a6%b8%e0%a6%a6%e0%a7%8d/feed/ 0
ভারতে জন্ম নিল প্লাস্টিক শিশু! https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%ad%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b2-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%95/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%ad%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b2-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%95/#respond Sun, 17 May 2015 06:22:52 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=35065 স্বাধীনদেশ  ডেস্ক : ভারতের পাঞ্জাবের অমৃতসরে এক নারী জন্ম দিয়েছেন একটি কলোডিয়ন শিশুকন্যা। গত দুই বছরে অমৃতসরে এটি দ্বিতীয় ঘটনা। কলোডিয়ন শিশু জন্ম নেয় খুবই কষা, মোমের মতো চকচকে ত্বক নিয়ে, অনেকটা প্লাস্টিকের মতো। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায়, এটিকে বলা হয় কলোডিয়ান মেমব্রেন। এটি খুবই বিরল ঘটনা। প্রতি ছয় লাখ শিশুর মধ্যে এমন একটি শিশুর জন্মের সম্ভাবনা থাকে।

এমন শিশুর মুখ অনেকটা মাছের মতো দেখতে। চোখ ও ঠোঁট থাকে টুকটুকে লাল। চিকিৎসকরা জানান, এটা এক ধরনের বিরল জিনগত ত্রুটি।  জি নিউজ তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত ৮ মে অমৃতসরের গুরু নানক দেব হাসপাতালে শিশুটির জন্ম হয়। হাসপাতালের এক চিকিৎসক জানান, যখনই শিশুটিকে কেউ ছোঁয়, তখনই সে কাঁদতে শুরু করে। মায়ের বুকের দুধ চুষে খেতেও পারছে না সে। ১১ মে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

২০১৪ সালেও অমৃতসরে এমন একটি শিশুর জন্ম হয়। কয়েক দিন পরেই শিশুটি মারা যায়। চিকিৎসকরা জানান, এ ধরনের শিশুর ত্বকের অবস্থা হয় খুবই যন্ত্রণাদায়ক। এদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম, মাত্র ১৫ থেকে ২০ শতাংশ। গুরু নানক দেব হাসপাতালের যে চিকিৎসক শিশুটির চিকিৎসা করেছেন তিনি জানান, জিনগত একধরনের সমস্যার কারণে এবং একধরনের প্রচ্ছন্ন বৈশিষ্ট্যের কারণে এই সমস্যা হয়। এই বৈশিষ্ট্য পরিবারের যে কারো জিনের মাধ্যমে প্রবাহিত হয়ে আসতে পারে। এই ধরনের সমস্যা হলে ত্বক আঁশযুক্ত হয়।

চিকিৎসকরা বলেন, ‘শিশুটির ত্বক পুরু, যদিও এই ধরনের অন্য শিশুদের ১৫ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে এই ত্বক খসে যায় এবং স্বাভাবিক ত্বক পাওয়া যায়। তবে এই প্রক্রিয়াটি খুবই যন্ত্রণাদায়ক।’ কলোডিয়ন শিশুরা স্বাধারণত অপরিপক্ব হয়ে জন্ম নেয় বলেও জানান তাঁরা।
চিকিৎসকরা জানান, এই পুরু ত্বক শিশুকে শুধু রাবারের মতো শক্ত চেহারাই দেয় না বরং শিশুর মায়ের জন্য তাকে দুধ পান করানোও কঠিন করে দেয়।

এই ধরনের ত্বক নিয়ে জন্ম নেওয়া শিশুরা সংক্রমণের স্থায়ী ঝুঁকির মধ্যে থাকে বলে জানিয়েছেন শহরটির চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা। এ ছাড়া এই শিশুদের শরীরের তাপমাত্রা অস্বাভাবিক রকমের কম থাকে এবং তারা পানিশূন্যতাতেও ভোগে। তবে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করে যত্ন নিলে এবং আর্দ্র ইনকিউবেটরে রেখে চিকিৎসা চালিয়ে গেলে এ ধরনের সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। সূত্র: জি নিউজ

]]>
https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%ad%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a7%87-%e0%a6%9c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b2-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%95/feed/ 0
ঝিনাইদহে জোড়াশিশুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিল আচল ট্রাস্ট https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%9c%e0%a7%8b%e0%a7%9c%e0%a6%be%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%9a%e0%a6%bf%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a7%8e/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%9c%e0%a7%8b%e0%a7%9c%e0%a6%be%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%9a%e0%a6%bf%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a7%8e/#respond Fri, 01 May 2015 08:29:06 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=34257 স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ : গত ২৬ মার্চ যশোর শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে অপারেশনের মাধ্যমে জন্ম নেওয়া জোড়া লাগানো দুই মেয়ের মা হয়েছিলেন ঝিনাইদহের তাকিয়া সুলতানা লাবনী। এখন দুই শিশুসহ তাদের মা সুস্থ আছেন। তাদের মাথা, হাত ও পা পৃথক থাকলেও বুক থেকে পেট পর্যন্ত জোড়া লাগানো। মেয়ে দুটির নাম রাখা হয়েছে লাইবা ও লাবিবা। । মেয়ে দুটির ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তিত ছিলেন পরিবারের সদস্যরা।

এদিকে শুক্রবার বিকালে জোড়া দুই শিশুর চিকিৎসা দায়িত্ব নিলেন ঢাকাস্থ বেসরকারি সংস্থায় আচল ট্রাাষ্ট। শিশু দুটিকে অপারেশনের মাধ্যমে আলাদা করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে এই উদ্যোগ তাদের। শুক্রবার বিকেলে আচল ট্রাষ্টের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম শোভন অ্যাম্বুলেন্সে করে তাদের নিজ বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। বাড়ি থেকে যশোর ও যশোর থেকে বিমান যোগে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাদের।

সেখানে পূর্ণ চিকিৎসার মাধ্যমে তাদের আলাদা করা হবে। যদি হাসপাতালে তাদের আলাদা করা সম্ভব না হয় তবে উন্নত কোন দেশে তাদের নিয়ে যাওয়া হবে। আচল ট্রাষ্টের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম আরো জানান, হাসপাতালে সকল পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তাকে সু-চিকিৎসা দেওয়া হবে। এ পর্যন্ত আচল ট্রাষ্টের পক্ষ থেকে অনেক শিশুকে চিকিৎসা দিয়ে ভালো করা সম্ভব হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আড়াই বছর আগে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার লৌহজং গ্রামের নজরুল ইসলামের মেয়ে তাকিয়া সুলতানা লাবনীর সাথে যশোর সদর উপজেলার বাগডাঙা গ্রামের আলতাফ হোসেনের বিয়ে হয়। লাবনীর স্বামী বর্তমানে মালয়েশিয়া প্রবাসী।

গত ২৬ মার্চ যশোর শহরের কুইন্স হাসপাতালে অপারেশনের মাধ্যমে জোড়া লাগানো শিশুর জন্ম দেন লাবনী। শিশু দুটির শরীরের মাথা, হাত ও পা পৃথক থাকলেও বুক থেকে পেট পর্যন্ত জোড়া লাগানো। জন্মের পর কয়েকদিন শিশু দুটিকে ইনকিউবেটরে রাখতে হয়েছিল। তারা খাওয়া, ঘুমানো, প্রসাব-পায়খানা পৃথকভাবে করছে। স্বাভাবিক ভাবে খাবার গ্রহণ করছে। হাসছে, কাঁদছে ও খেলছে। সুস্থ হওয়ার পর নানা বাড়ি আনা ঝিনাইদহের লৌহজং গ্রামে আনা হয়। সেখানে লাইবা ও লাবিবাকে দেখতে প্রতিদিন শত শত মানুষ ভিড় করছেন। পরিবারের সদস্যরা বলছেন, আল্লাহ যা দিয়েছেন তা নিয়েই খুশি তিনি। এলাকাবাসী বলছেন- এমন ঘটনার কথা তারা টিভিতে দেখেছের, লোকমুখে শুনেছেন। এবার বাস্তবে দেখলেন।

এবিষয়ে ঝিনাইদহের শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দুলাল কুমার চক্রবর্তী জানান, শিশু দুটির হৃদপি- পৃথক হলে অপারেশনের মাধ্যমে তাদের আলাদা করা সম্ভব।

]]>
https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%9c%e0%a7%8b%e0%a7%9c%e0%a6%be%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0-%e0%a6%9a%e0%a6%bf%e0%a6%95%e0%a6%bf%e0%a7%8e/feed/ 0
ঝিনাইদহের শিশুরা সংসার সংগ্রামে শৈশবেই কর্মজীবী : সমাজের বিত্তবাদনের এসব অবহেলিত শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান সমাজের সব মানুষের https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8/#respond Wed, 22 Apr 2015 09:35:59 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=33837 স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ : যে বয়সে স্কুলের সহপাঠীদের সঙ্গে হই-হুলে¬াড় করার কথা, বই নিয়ে স্কুলে ছুটে যাওয়ার কথা আর সেই সময়ে ওদের সময় কাটে শ্রম বেচে টাকা উপার্জন করে। কেউ দিন হাজিরাই কাজ করছে। আবার কেউ কোনো কিছু না বুঝে অন্যের কাছে হাত পেতে অর্থ উপার্জন করছে। সেই অর্থ তুলে দিতে হচ্ছে অবিভাবকদের হাতে। তবে এরা স্কুলে যাবার ইচ্ছেও পোষণ করে। শনিবার রাতে কয়েকজন শিশুর সঙ্গে কথা হলে তারা বিভিন্ন ইচ্ছে প্রকাশ করে।

ঝিনাইদহ শহরের চাকলাপাড়ার জিহাদ জানায়, তার বাবার নাম ডাবলু। তাদের কোনো জায়গা জমি নেই। বাবাও অসুস্থ। আয় করার মতো সংসারে তেমন কেউ নেই। তাই দিন হাজিরাই কাজ করতে হচ্ছে। যেদিন কাজে আসে সেদিন টাকা পায়। যেদিন আসে না সেদিন পায় না। স্কুলে যাবার ইচ্ছে আছে। কিন্তু সংসারের আয়ের কথা ভেবে স্কুলে যাওয়া হয় না।

শহরের হাট খোলার রুমান জানায়, তার বাবা রুবেল হোসেন পেশায় চালক। তাদের কোনো খোঁজ-খবর রাখে না। তাই খেয়ে বেঁচে থাকার জন্য এভাবে নানা জিনিসপত্র বিক্রি করি। যা আয় হয় সেই টাকা দিয়ে কোনো রকম সংসার চলে। বাবা খোঁজ-খবর নিলে সংসার হয়তো চলতো। স্কুলে যাবার সুযোগ হতো। ছোট শিশু নিসা জানান, তার মা ডালিয়া এখানে রেখে গেছে। লোকজনের কাছে টাকা চাচ্ছি। তারা টাকা দিচ্ছে। এই টাকা সে তার মায়ের কাছে দিবে বলে জানায়। এই টাকা দিয়ে কী হবে সে জানে না। তবে জানায় মিষ্টি খাবো। আর মায়ের কাছে এই টাকা দেবে। তবে শিশুটির মায়ের সঙ্গে কথা বলার জন্য খোঁজ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

]]>
https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a6%be-%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b8/feed/ 0
ঝিনাইদহে শিক্ষকের ডাস্টারের আঘাতে ছাত্রের চোখ নষ্ট হবার পথে  https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%a1%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%be/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%a1%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%be/#respond Sat, 28 Mar 2015 10:25:54 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=32567 স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের ডাস্টারের আঘাতে দ্বিতীয় শ্রেনীর এক ছাত্রের চোখ নষ্ট হবার পথে। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের শরিফুল ইসলামের দ্বিতীয় শ্রেনী পড়–য়া ছাত্র ইমরানকে ডাস্টার দিয়ে বাম চোখে আঘাত করে লক্ষীপুর স্কুলের সহকারী শিক্ষক আসলাম খাঁন। এখন ইমরানের চোথ নষ্টের পথে। ইমরানের পিতা শরিফুল ইসলাম জানান, গত ২৩ মার্চ সোমবার ইমরান স্কুলে যায়। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আসলাম খানের ক্লাসে উপস্থিত ছিল। ইমরানকে পড়া ধরলে সে পড়া পারে না। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আসলাম খান ঐ ছাত্রকে লক্ষ করে ডাস্টার ছোড়ে। ডাস্টারটি তার বাম চোখে লাগে। তাৎক্ষনিকভাবে চোখটি ফুলে যায়।

এরপর তার বাবা ডাক্তারের শরনাপন্ন হয়। ডাক্তার জানায় চোখটি ভাল হতে সময় লাগবে। তবে চোখে সারাজীবন সমস্যা থাকবে। উল্লেখ্য গত বৎসর এই শিক্ষক দ্বিতীয় শ্রেণীর পারভেজ নামে এক ছাত্রকে বেত দিয়ে আঘাত করলে অসুস্থ হয়ে পড়ে। প্রধান শিক্ষক আলী আকবর স্কুলের ফান্ড থেকে ঐ ছাত্রের চিকিৎসা ব্যয় ভার বহন করে। একই বৎসরের ৭ সেপ্টম্বর তারিখে একই গ্রমের নজরুলে ছেলে মাহীকে একই ভাবে বেত দিয়ে জোরাল আঘাত করলে সেও অসুস্থ হয়ে পড়ে। একইভাবে শরিফুলের ছেলে সামীকেও আঘাত করে। ছাত্রদের আঘাত করা এখন তার নেশায়ে পরিনত হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক আলী আকবরের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ইমরান ছেলেটি খুবই দুষ্ট। একটু আঘাত লেগেছিল তবে বর্তমানে সুস্থ। প্রধান শিক্ষক আরো বলেন,ছোট বাচ্চাদের নিয়ে চলতে হয়। একটু আঘাত লাগতেই পারে।

]]> https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%b6%e0%a6%bf%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%b7%e0%a6%95%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%a1%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%9f%e0%a6%be/feed/ 0 ঝিনাইদহের সদর হাসপাতালে এবার ৭দিনে ৩ শিশুর মৃত্যু  https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%a6%e0%a6%b0-%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a7%87/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%a6%e0%a6%b0-%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a7%87/#respond Thu, 26 Mar 2015 12:41:12 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=32429 স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহ জেলার হাসপাতালগুলোতে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশু রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। অতিরিক্ত রোগীর চাপ বাড়ায় চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা। এক সপ্তাহে নিউমোনিয়াসহ বিভিন্ন রোগে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে মারা গেছে তিনটি শিশু। বর্তমানে চিকিৎসা নিচ্ছে ৫০ জন শিশু। এর মধ্যে শিশু ওয়ার্ডে ৩৪ ও ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ১৬টি শিশু ভর্তি রয়েছে এবং প্রতিদিন এ হাসপাতালের জরুরি ও বহিঃবিভাগের মাধ্যমে দুশতাধিক রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে।

উল্লেখ্য, হাসপাতালটিতে শুধুমাত্র মহিলা মেডিসিন ও শিশু ওয়ার্ডে শিশুদের জন্য নির্ধারিত রয়েছে মাত্র আটটি শয্যা। কিন্তু শয্যা চেয়ে কয়েকগুন বেশি রোগীর থাকায় চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা। এবং পর্যাপ্ত শয্যা না থাকায় রোগীদের স্থান হচ্ছে হাসপাতালের মেঝেতে ও বারান্দায়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে একশয্যায় দুই বা ততোধিক শিশু রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এতে করে সুস্থতার বদলে রোগীরা বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ছে। ডায়রিয়া ওয়ার্ডে শিশুদের জন্য নেই নির্ধারিত কোনো শয্যা।

এক সপ্তাহে দুশতাধিক শিশু রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছে তিনটি শিশু। গত ১৯ মার্চ সকালে ও রাতে দুটি ও ২৩ মার্চ সকালে একটি শিশু মারা যায়। দিনের তুলনায় রাতেই বাড়ছে শিশু রোগী ভর্তির সংখ্যা। হাসপাতালে সেবা নিতে আসা শিশু রোগীর অভিভাবকরা অভিযোগ করেন, দিনের পর দিন হাসপাতালে থাকলেও একটা শয্যাও মিলছে না। আর শয্যা না থাকার ফলে বাচ্চাদের সুস্থতার বদলে বাচ্চারা বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ছে। তবুও এ সমস্যা সমাধানে কর্তৃপক্ষের নেই কোনো উদ্যোগ। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, হঠাৎ করে আবহাওয়ার পরিবর্তনের কারণে এখন ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগে শিশুরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। বিশেষ করে দিনে প্রচন্ড গরম আর রাতে ঠান্ডা পড়ছে। আর শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকায় শিশুরা এসব রোগে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। তার পাশাপাশি অভিভাবকদের অসচেতনতাও এর জন্য অনেক দায়ী।

আর মাঝে মাঝে রোগীর চাপ এতই বেশি হচ্ছে যে চিকিৎসা সেবা দিতে অনেক সময় আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। তিনি আরো জানান, চিকিৎসা সেবা দেয়ার পাশাপাশি অভিভাবকদেরকে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। যেমন তাদেরকে বলা হচ্ছে, বাচ্চাদের খাওয়ানোর আগে ভাল করে হাত ধুয়ে নিতে হবে, পানি বিশুদ্ধ করে খাওয়াতে হবে, হাঁচি-কাশি থেকে বাচ্চাদেরকে দূরে রাখতে হবে। সর্বোপরি তাদেরকে সব বিষয়ে সচেতন থাকতে বলা হচ্ছে। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শাহ্ আলম জানান, রাতের বেলায় ভর্তিকৃত শিশু রোগীর চাপ একটু বেশি থাকে। পাশাপাশি দিনে ও রাতে ছোটদের পাশাপাশি বয়ষ্করাও হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে শ্বাসকষ্ট ও ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে।

]]> https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a6%a6%e0%a6%b0-%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%b8%e0%a6%aa%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a7%87/feed/ 0 ঝিনাইদহে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনা আনুষ্ঠানে উপকরন বিতরন https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a7%80-%e0%a6%9b%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%9b%e0%a6%be/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a7%80-%e0%a6%9b%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%9b%e0%a6%be/#respond Wed, 25 Mar 2015 10:29:38 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=32359 স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের উমেদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এনরোলমেন্ট ক্যাম্পেইন,মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনা,উপকরন বিতরন আনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে । এ্যাকশান ইন ডেভেলপমেন্ট-এইড এর আয়োজনে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এর সহযোগিতায় “শিশুদের স্কুলে দিন,উন্নয়নে অংশ নিন” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে এ উপলক্ষে সকাল ১১টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গন হতে এক র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি উমেদপুর বাজারের প্রধান-প্রধান সড়ক প্রদক্ষীন শেষে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

উমেদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উমেদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সুফিয়া খাতুন,এইডের ড্রিম প্রকল্পের এরিয়া ম্যানেজার নাসির উদ্দিন বিশ্বাস,ইউনিয়ন ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক রতœা বেগম,সহ-সভাপতি মুনসুর আলী,শিক্ষিকা জেসমিন আক্তার,নুরুন্নাহার,প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ম্যানিজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ প্রমূখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ড্রিম প্রকল্পের রিয়াজুল ইসলাম ও ফিরোজ আহমেদ।

সুবিধা বঞ্চিত প্রান্তিক মানুষের অধিকার অর্জন প্রকল্প (ড্রিম)’র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনাসহ পুরষ্কার বিতরন,উপকরন ও খেলার সামগ্রী বিদ্যালয়ে সকল ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিতরন করা হয়েছে। স্কুল ম্যানিজিং কমিটির সদস্য,সোসাল এনিমেটর,ইউনিয়ন ফেডারেশন,সুশীল সমাজ,শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবক,ইউপি মেম্বর,স্থানীয় সাংবাদকর্মীসহ ৩শতাধিক গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও ২৩ মার্চ মনোহারপুর ইউনিয়নের হিতামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ,২২ মার্চ মনোহারপুর ইউনিয়নের ছুন্ধা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও ২১ মার্চ সারুটিয়া ইউনিয়নের ছোট মৌকুড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একই কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা শেষে প্রধান অতিথি উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো: জাহিদুল ইসলাম ও অতিথিগন মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন ।

]]> https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%9d%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%a6%e0%a6%b9%e0%a7%87-%e0%a6%ae%e0%a7%87%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a7%80-%e0%a6%9b%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%b0-%e0%a6%9b%e0%a6%be/feed/ 0 কানাইঘাটে ৫ দিনেও অপহৃত মাইশাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ! https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%98%e0%a6%be%e0%a6%9f%e0%a7%87-%e0%a7%ab-%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%93-%e0%a6%85%e0%a6%aa%e0%a6%b9%e0%a7%83%e0%a6%a4-%e0%a6%ae/ https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%98%e0%a6%be%e0%a6%9f%e0%a7%87-%e0%a7%ab-%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%93-%e0%a6%85%e0%a6%aa%e0%a6%b9%e0%a7%83%e0%a6%a4-%e0%a6%ae/#respond Thu, 19 Mar 2015 10:34:11 +0000 http://www.swadhindesh.com/?p=31879 সিলেট, বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ  : কানাইঘাট উপজেলা থেকে মাইশা (১৩) নামে ৮ম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ‘অপহরণের’ ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও তাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। এতে তার স্বজনদের মধ্যে বাড়ছে উদ্বেগ। এ ঘটনায় মাইশার মা বাদি হয়ে ৪ জনকে আসামি করে কানাইঘাট থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। গত রবিবার মাইশাকে অপহরণ করা হয় বলে মামলার এজহারে উলে­খ করা হয়েছে। মাইশা কানাইঘাটের দুর্বলপুর গ্রামের শাকেরা বেগমের মেয়ে।

মামলা সূত্রে জানা যায়- গত রবিবার সকাল ৮টায় প্রাইভেট পড়ার জন্য মাইশা নিজ বাড়ি থেকে বের হয়। মনসুরিয়া ত্রিমুহনী এলাকায় আসার পর পূর্ব পরিকল্পিতভাবে একই এলাকার মৃত ইসহাক আলীর ছেলে বাহার উদ্দিন (২১), জমির উদ্দিন (২৪) ও এনাম উদ্দিন (২৮) গংরা মাইশাকে জোরপূর্বকভাবে একটি সিএনজি অটোরিকশা দিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। প্রথমে এ বিষয়টি মাইশার পরিবার জানতো না। তাই নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও মাইশা বাড়ি না ফেরায় কানাইঘাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করা হয় (নং ৬৪২)।

পরে প্রতিবেশি মৃত জায়ফর আলীর ছেলে নুরুল আমিন ও ছোটদেশ গ্রামে মামুনুর রশীদের কাছ থেকে বাহার গংদের হাতে মাইশা অপহৃত হওয়ার খবর পেয়ে তার মা শাকিরা বেগম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বাহার উদ্দিনসহ ৪ জনের নামোলে­খ করে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

‘অপহৃত’ মাইশার মা শাকিরা বেগম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ৫ দিন হয়ে গেল আমার মেয়ের কোনো সন্ধান পাইনি। আমি আর ধৈর্য্য ধরে রাখতি পারছি না। পুলিশ তাকে কোনো সঠিক তথ্য জানাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে কথা বলতে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আউয়াল চৌধুরীকে ফোন দেয়া হলে তিনি উদ্ধত্য কন্ঠে বলেন, ‘আমি কিছু জানিনা। মেয়ের মায়ের কাছে ফোন দেন।’ এ কথা বলেই তিনি ফোন কেটে দেন। পরে আবারও তাকে ফোন দেয়া হলে তিনি রিসিভ করেননি। তবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রাশেদুল আলম খান জানান, মেয়েটি উদ্ধারের জন্য জোরালো তৎপরতা চলছে।

]]>
https://bangla.swadhindesh.com/%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%98%e0%a6%be%e0%a6%9f%e0%a7%87-%e0%a7%ab-%e0%a6%a6%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a7%87%e0%a6%93-%e0%a6%85%e0%a6%aa%e0%a6%b9%e0%a7%83%e0%a6%a4-%e0%a6%ae/feed/ 0